- Advertisement -

বারহাট্টায় উন্নত জাতের সরিষার আবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে

125

- Advertisement -

বারহাট্টা হবে সরিষার ঘাটি।

সরিষা একটি সামাজিক ফসল। সামাজিক বলার কারণ যার বহুবিধ উপকারি দিক রয়েছে। স্বল্পদিনের ফসল সরিষা যার উৎপাদন খরচ কম, পানির প্রয়োজন পড়ে না এবং সরিষা শেষে অনায়সের বোরো আবাদ করা যায়। তাছাড়া সরিষার শাক, সরিষার ফুলের বড়া খুবই সুস্বাদু ও মুখরোচক খাবার। সরিষার পাতা জমিতে পড়ে পচে গলে জৈবসারে পরিণত হয়। সরিষার গাছের লাকরিও খুবই ভালো।

আমাদের দেশে সরিষার বহু উন্নত জাত রয়েছে। বারহাট্টার মাটিতে টরি ৭ এর পাশাপাশি কিছু আধুনিক উন্নত জাত যেমন বারি সরিষা ১৪, বারি সরিষা ১৭ এবং বারি সরিষা ১৮ জাতের সরিষার ফলন বেশ ভালো হয়। তাছাড়া বিনা সরিষা ৯ জাতের সরিষার ফলনও খুবই ভালো হয়।

কৃষি বিভাগ বারহাট্টার তথ্যমতে রবি/২০১৯-২০ মৌসুমে বারহাট্টা উপজেলায় প্রায় ৪৮০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের সরিষার আবাদ করা হয়। মাঠ পর্যায়ে সরিষার আধুনিক জাতের সম্প্রসারণে কৃষি বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে। সরিষার আবাদ বৃদ্ধির কৌশল হিসেবে আগাম জাতের রোপা আমন চাষ করে পরবর্তীতে উন্নত জাতের সরিষার আবাদ করলে সহজেই বোরো আবাদ করা যায়। এতে বিনা ধান৭, ব্রি ধান৫৬, ব্রি ধান৭১, ব্রি ধান৭৫ জাতের রোপা আমন ধান আবাদ করার ব্যাপারে কৃষক পর্যায়ে কৃষি বিভাগ উদ্বুদ্ধ করে যাচ্ছে।

সরিষার আবাদে অবশ্যই কার্তিক মাসের ৩০ তারিখের মধ্যে বপন করা হলে সর্ব্বোচ্চ ফলন পাওয়া যায়। সরিষা ফসলে পরিমাণমত জিপসাম ও বোরণ সার ব্যবহার করলে সরিষা বেড়ে যায়।

কৃষি বিভাগের নিরন্তর প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে, সরিষার আবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সয়াবিনের উপর নির্ভরশীলতা কমবে সেই আশায় কৃষি বিভাগ নিরলস কাজ করে যাচ্ছে।

 

- Advertisement -

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়, কিন্তু ট্র্যাকব্যাক এবং পিংব্যাক খোলা.